সারাদেশ

গাজারিয়ায় সরকারী ত্রাণের জন্য মানববন্ধন

২ মে ২০২০,বিন্দুবাংলা টিভি. কম, এম ডি ওসমান : প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সামগ্রী সুষম বণ্টনে জেলা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ধের বিতরনের সকল তদারকির দায়িত্ব দিয়েছে। কিন্তু অনিয়ম আর দুর্নীতির কারে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছেন বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ ইউপি সদস্য রা।

তারই প্রতিফলন, ত্রানের জন্য মানববন্ধন।
মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার টেঙ্গারচর ইউনিয়নের মিরপুরের আশ্রয়ণ প্রকল্পের লোকজন ত্রানের জন্য মানব বন্ধন করেছে।আশ্রয়ণ প্রকল্পে থাকা স্থানীয় লোকজন।
তাদের দাবী আশ্রয়ণ প্রকল্পে থাকা কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছায়নি মানববন্ধনে এমন্টাই যানায়।
টেংগারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাউদ্দীন মাষ্টার তার এক বিবৃতিতে বলেন দেশের এই ক্লান্তি লগ্নে অত্র টেংগারচর ইউনিয়ন পরিষদের আওতাধীন কোন নাগরিক আল্লাহর অশেষ রহমতে, করোনা আক্রান্ত হয়নি বলে পরম করুনাময় সৃষ্টিকর্তার নিকট শুকরিয়া আদায় করছি এবং আমাদের সকলকে সুস্থ রাখার প্রাথর্না করছি।
আমরা ইউনিয়ন পরিষদের সকল ইউ.পি সদস্য, ইউ.পি সচিব, হিসাব সহকারী, উদ্যোক্তা ও গ্রাম পুলিশ, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার হতে প্রাপ্ত সকল ত্রান সামগ্রী, তালিকাভুক্ত উপকারভোগীদের বাড়ীতে পৌছে দেওয়ার জন্য সব সময়ই প্রস্তুত রয়েছি, বরাদ্দ অনুযায়ী প্রতিটি বাড়িতে ত্রান পৌছে দেওয়াসহ সরকারের সকল নির্দেশনা পালন করতে সক্রিয় ভুমিকা পালন করছি।
সরকারি ত্রান সামগ্রী বাড়ী বাড়ী পৌছে দেওয়ার ক্ষেত্রে, স্থানীয় ইউ.পি সদস্য, উপজেলা কর্তৃক মনোনিত প্রতিনিধি, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তি ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিদের সহায়তায় আমরা ত্রান বিতরন করে থাকি।
এদিকে অত্র ইউনিয়নের ০৫নং ওয়ার্ডের অর্ন্তভুক্ত মিরপুর আশ্রয়ন প্রকল্পে কিছু কিছু লোক, ত্রান না পাওয়ার অভিযোগে মানববন্ধন করেছে, যা আমাদের সকলকে হতাশ করেছে। উল্লেখ যে, প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে জি.আর হতে প্রাপ্ত খাদ্য শস্য দ্বারা তাদের প্রথমে চাল, ডাল, তেল সহ বেশ কিছু নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এর উপস্থিতিতে তাদের মাঝে বিতরন করা হয়েছে, এর কিছুদিন পর হাজী কেরামত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে সম্মানীত সভাপতি আজিম উদ্দিন ফরাজী তাদের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় বেশ কিছু সামগ্রী বিতরন করেন, তার পর-পরই অত্র ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জনাব শাহজাহান খাঁন তাদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতনর করেন। এছাড়াও বে-সরকারী/বিভিন্ন সংগঠন/ব্যাক্তি উদ্যোগেও কিছু কিছু পরিবার ত্রান সামগ্রী পেয়েছেন। আমরা সরকার হতে প্রাপ্ত যে কোন বরাদ্দের ক্ষেত্রে, অত্র ইউনিয়নের ০২টি আশ্রয়ন প্রকল্পকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকি। এমতাবস্থায় তাদের এই মানবন্ধন ও মিথ্যাচার আমাদের সকলকে নিরাশ ও অত্র ইউনিয়নের ভাবমূতি ক্ষুন্ন করেছে।
মানববন্ধন এর বিষয় নিয়ে গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব হাসান সাদী এর কাছে জানতে চাইলে
তিনি আমাদের কে জানায় মিরপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের সবাই সরকারি ত্রাণ পেয়েছেন, বেসরকারি ত্রাণও পেয়েছে। তবে কেন মানববন্ধন করেছে এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা করে নেওয়া হবে বলে যানায়।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button