সারাদেশ

হোমনায় ৮ কাঁচাবাজার খোলা মাঠে , তদারকিতে পুলিশ

১০ এপ্রিল ২০২০, বিন্দুবাংলা টিভি. কম,
সৈয়দ আনোয়ার :
মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে সামাজিক (শারীরিক দূরত্ব) বজায় রেখে ক্রয় বিক্রয়ের সুবিধার্থে। উপজেলার বড় ৮ টি বাজারের, তরকারী,মাছ ও দুধ সরিয়ে নিয়েছেন পার্শ্ববর্তী বড় খোলা মাঠে। পুলিশের সার্বক্ষণিক নজরদারীতে উপজেলাজুরে।

হোমনা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা, (হোমনা-মেঘনা সার্কেল) সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফজলুল করিম,হোমনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুল কায়েস আকন্দ গত কয়েকদিনের টানা পরিকল্পনায়। সুবিধাজনক খোলা মাঠ নির্বাচনের পর। আজ উপজেলা সদর,গারমোরা,কাশিপুর, দুলালপুর, শ্রীপুর, ঘনিয়ারচর,দরিচর, রামকৃষ্ণপুর এই মোট আটটি বাজারের কাঁচামাল বিক্রেতাদের জন্য আলাদা খোলা মাঠে দূরত্ব ভেদে দোকান সৃষ্টি করে দেয়া হয়।

সামাজিক (শারীরিক) দূরত্ব বজায় রেখে তৈরি করা এই অস্থায়ী বাজারগুলো ঘুরে ঘুরে দেখা যায়। ক্রেতা-বিক্রেতাদের শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে নিরাপদ থেকে সচেতনতার সাথে ক্রয় এবং বিক্রয় এর জন্য উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন এএসপি মো.ফজলুল করিম, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আবুল খায়ের আকন্দ সহ পুলিশ বাহিনী।এতে ক্রেতা-বিক্রেতারা সচেতনতার সাথে ক্রয়-বিক্রয় ও কাজ শেষে দ্রুত ফিরছেন ঘরে।

এছাড়াও সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রাখছেন পুরো উপজেলা। বিশেষ কারণ ছাড়া কেউ বাইরে আসলেই পুলিশের জেরার মুখে পড়তে হচ্ছে। ব্যবহার করতে হচ্ছে মাস্ক, চলতে হচ্ছে নিরাপত্তা বলয় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে। কাজ শেষে ফিরতে হচ্ছে দ্রুত বাসায়। প্রতিটি এলাকায় প্রতিদিন অন্তত এক থেকে দুইবার আসছেন এএসপি মো.ফজলুল করিমের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী। ঘুরছেন বাজার-হাট যাচ্ছেন পাড়া-মহল্লায়। খোঁজখবর রাখছেন কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের। ঘর বন্ধি করছেন ঢাকা নারায়ণগঞ্জ শহর সহ অন্য জেলা থেকে পালিয়ে আসা ব্যক্তিদের।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button