আন্তর্জাতিক

ভারতে মুসলিম বৃদ্ধকে মারধর-লাঞ্ছনা, গ্রেপ্তার ১

১৪ জুন ২০২১, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

ভারতের বৃহত্তম রাজ্য উত্তরপ্রদেশে ফের মুসলিম নিগ্রহের ঘটনা ঘটেছে। এবার দুষ্কৃতিকারীদের হামলার শিকার হয়েছেন আব্দুল সামাদ নামের এক বৃদ্ধ।

নির্যাতনের বিবরণ দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন আব্দুল সামাদ। ইতোমধ্যে সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি অনলাইনকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, রোববার রাতে রাজ্যের লোনি শহরে ঘটেছে এই ঘটনা। হামলাকারীদের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, বাকিদেরও গ্রেপ্তারের তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ভিডিওবার্তায় আব্দুল সামাদ বলেন, রোববার মসজিদে এশার নামাজ আদায় শেষে অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় একটি অটোরিকশা এসে তার সামনে থামে এবং সেখান থেকে তিন ব্যক্তি নেমে এসে তাকে বলে, তার সঙ্গে জরুরি কথা আছে তাদের।

কী কথা জানতে চাইলে তাদের একজন প্রথমে তাকে চড় দিয়ে ফেলে দেয় এবং তারপর টেনে হিঁচড়ে তাকে কাছের একটি পরিত্যাক্ত কুঁড়েঘরে নিয়ে যায়।

ভিডিওবার্তায় কাঁদতে কাঁদতে সামাদ বলেন, ‘ঘরে নিয়ে গিয়ে প্রথমে বাঁশ ও কাঠের লাঠি দিয়ে তারা আমাকে মারধোর করে, তারপর ছুরি দিয়ে দাড়ি কেটে দেয় এবং ‘জয় শ্রীরাম’ ও ‘বন্দে মাতরম’ স্লোগান উচ্চারণ করতে বলে। আমি কী অপরাধ করেছি জানতে চাইলে তারা বলে, আমি পাকিস্তানি এজেন্ট।’

সামাদ আরো বলেন, ‘তারা আমাকে মুসলিম নির্যাতনের বিভিন্ন ভিডিও দেখিয়ে বলে যে, আমি যদি অপরাধ স্বীকার না করি, তাহলে নির্যাতন আরও বাড়বে, আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়েছে।’

লোনির জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা অতুল কুমার সোনকার এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, পুলিশ এ বিষয়ে ইতোমধ্যে একটি মামলা গ্রহণ করেছে এবং ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে প্রবেশ গুজ্জার নামে এক সন্দেহভাজন হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপর দুই হামলাকারীকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারেও তৎপরতা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি। গ্রেপ্তার গুজ্জার অবশ্য এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেননি।

ভারতের রাজনৈতিক দল বিজেপি দেশের কেন্দ্রীয় ক্ষমতায় আসীন হওয়ার পর থেকে গত কয়েকবছর ধরেই দেশব্যাপী নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন মুসলিম সংখ্যালঘুরা। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি সাম্প্রদায়িক নিপীড়ণের ঘটনা ঘটেছে বিজেপি নেতা যোগী আদিত্যনাথ শাসিত উত্তরপ্রদেশ রাজ্যে। সূত্র: এনডিটিভি অনলাইন

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button