সারাদেশ

বিয়ের বাজারের জন্য ডেকে নিয়ে তরুণীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

১৫ জুন ২০২১, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

সিলেটের জালালাবাদে বিয়ের বাজারের কথা বলে তরুণীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৪ জুন) রাতে নীলগাঁও পুঁটিকাটা ব্রিজে ঘটনাটি ঘটেছে উল্লেখ করে মঙ্গলবার (১৫ জুন) ওই তরুণী জালালাবাদ থানায় মামলা করেন।

গ্রেপ্তার দুই জন হলো, জালালাবাদ থানার ইসলামপুর মানসিনগর গ্রামের কাপ্তান মিয়ার ছেলে তাজউদ্দিন (২২) ও মানসিনগর গ্রামের রজন মিয়ার ছেলে এখলাছুর রহমান (২৭)। তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল হুদা খান জানান, মূলহোতা তাজউদ্দিন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাজার করতে ভিকটিমকে সিলেট নগরীতে আসতে বলেন। সেখান থেকে তাজের আরও দুই সঙ্গী নিয়ে ভিকটিমকে নীলগাঁও পুটিকাটা ব্রিজে নিয়ে গিয়ে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করেন। পরে সেখান থেকে নিয়ে যাওয়ার সময় ভিকটিমের কান্নার শব্দ শুনে স্থানীয়রা অটোরিকশার গতিরোধ করেন। এ সময় মূলহোতাসহ দুজনকে আটক করলেও অটোরিকশার চালাক পালিয়ে যান। পরে তাদের পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয়রা।

ওসি জানান, ভিকটিমকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (​ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, মোবাইল ফোনে তাজউদ্দিনের সঙ্গে পরিচয় হয় তরুণীর। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিয়ের বাজার করবে বলে তরুণীকে বাড়ি থেকে বের হতে বলে তাজউদ্দিন। পরে নীলগাঁও পুঁটিকাটা ব্রিজে নিয়ে অটোরিকশার ভেতরে তরুণীকে ধর্ষণ করে। এরপর তাজউদ্দিনের সহযোগী এখলাছুর রহমান ও নলকট গ্রামের অটোরিকশাচালক ফুল মিয়াও তরুণীকে ধর্ষণ করে।

আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, সেখান থেকে তরুণীকে নিয়ে অটোরিকশাযোগে সিলেট নগরীর দিকে আসতে থাকে তারা। এ সময় কান্না শুনে নীলগাঁওয়ের স্থানীয়রা অটোরিকশাটি আটকায়। তরুণীর কাছ থেকে ঘটনা শুনে তাজউদ্দিন ও এখলাছুরকে আটক করেন তারা। তবে অটোরিকশাচালক ফুল মিয়া পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলেও জানান উপ-পুলিশ কমিশনার আশরাফ উল্লাহ তাহের।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button