রাজনীতি

দোষী প্রমাণিত হলে নাসিরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে জাপা

১৪ জুন ২০২১, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

ঢালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসির উদ্দিন দোষী প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবে দলটি।

সোমবার (১৪ জুন) সন্ধ্যায় দেশের একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে জাপার চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের এ কথা জানান।

জি এম কাদের বলেন, নাসির উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে দলের সঙ্গে রয়েছেন। মাঝে কিছুদিন তিনি দলে নিষ্ক্রিয় ছিলেন। কাউন্সিলের পর আবার দলের সঙ্গে যোগাযোগে রয়েছেন। তিনি উত্তরা ক্লাবে তিন তিনবার নির্বাচিত হয়েছেন। কখনো তার বিরুদ্ধে কোনো বেড রেপুটেশন শুনিনি।

তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, হঠাৎ করেই কিছু করা যাবে না। তদন্ত হবে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে তার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে প্রশাসনিক তদন্তের পাশাপাশি জাতীয় পার্টিরও একটি গোপন তদন্ত টিম রয়েছে। সেখানে নাসির উদ্দিনের দোষ প্রমাণিত হলে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সাইদুর রহমান টেপা।

তিনি বলেন, মামলা হলেই দোষী হয় না। আমরা সুষ্ঠু তদন্ত চাই, আদালত থেকে প্রমাণিত হলেই দোষী বলা যাবে। আর দোষী প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমাদের গঠনতন্ত্রে লেখা আছে সন্ত্রাস, রাহাজানি এসবের কোনো জায়গা নেই। একইসঙ্গে এও উল্লেখ আছে আমরা নারীদের সম্মানিত করবো।

অপরদিকে জাতীয় পার্টির তৃণমূল পর্যায়ের নেতারা মনে করেন, কারো ব্যক্তিগত ঘটনায় দায় জাপা নেবে না। যদি নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার মামলা প্রমাণিত হয় তবে অবশ্যই তাকে দল থেকে বহিষ্কার করতে হবে।

পরীমনির ঢাকা বোট ক্লাবে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিনসহ পাঁচজনকে দুপুরে রাজধানীর উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় দেশি-বিদেশি মাদকদ্রব্যও উদ্ধার করা হয়। এর আগে সকালে আশুলিয়ার একটি ক্লাবে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার শিকার হয়েছেন বলে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি। রোববার (১৩ জুন) রাতেও সাংবাদিকদের কাছে ও ফেসবুক পোস্টে তিনি একই অভিযোগ করেছিলেন।

তবে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, যে ঘটনা বলা হচ্ছে সবই মিথ্যা। আমি যখন বের হয়ে যাই তখন ওরা ঢোকে। ওরা যখন ঢোকে তখন আমাদের সিকিউরিটি অফিসাররা ছিলো না। তারা মদ্যপ অবস্থায় ঢোকে। তাদের সঙ্গে একজন ছেলে ছিলো। তারা যখন ঢোকে সবাই দুলতেছিলো। তারা মদ্যপ ছিলো।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button