সারাদেশ

রানীশংকৈল পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার

৭ ফেব্রুয়ারি  ২০২১, বিন্দুবাংলা  টিভি . কম,

মোঃ আকতারুল ইসলাম আক্তার ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: আজ ৭ফেব্রয়ারী রোজ রবিবার দুপুরের আসন্ন রানীশংকৈল পৌরসভা নির্বাচনের মেয়র স্বতন্ত্র প্রার্থী রুকুনুল ইসলাম ডলার তার ইন্জিন প্রতিকের নির্বাচনী ইসতেহার ঘোষনা করলেন। এ সময় উপস্হিত ছিলেন স্হানিয় সাংবাদিক বৃন্দএবং তার ইঞ্জিন মার্কার সমর্থক কর্মীরা।আ,লীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী রুকুনুল ইসলাম ডলার স্হানীয় সাংবাদিকদের সামনে এই পৌরসভার আগামী ০৫ বছরের নির্বাচনী ইসতেহারে বক্তব‍্যে এই পৌরসভার নানা সমস‍্যা,দূর্যোগ,উন্নয়ন সহ দলমত নির্বিশেষে কাধে কাধ মিলে এই নগরের শ্বপ্ন ধর্ম,ঐহ‍্যের কথা তুলে ধরেন। এবং তেভাগা আন্দোলন,মুক্তিযুদ্বে এ অঞ্চলের মানুষ অগ্রনী ভুমিকা পালন করেন। এবং বলেন এই পৌরসভায় রাজা রাম,শ‍্যাম রায়,পীর শাহ নাসির উদ্দীন,এখানে রাজবংশী কৃষক নারী,কমরেড,ভান্ডারী,রাজা টংকনাথের শান্তিপ্রিয় রাজপথ।এই প্রাচীর সমৃদ্ব জনপদের প্রতি গুরুত্ব অরোপ করে১৭৮ বছর আগে ১৮৩৭ সালেই প্রশাসনিক কাজের সুভিধার জন‍্য ব্রিটিশরা পুলিশ থানা স্হাপন করেন।

একটি প্রাচিন থানা হওয়া সত্বেও উন্নয়ন থেক আমরা অনেক পিছিয়ে।প্রান্তিক জনপদ হওয়াই এখানকার উন্নয়ননীতি নির্ধারন করেন ঢাকায় বসে নির্ধারকরা।

এই অবহেলিত জনপদের নাম পৌরসভা নাম হয়েছে আজ,এই জনপদের শিক্ষা দীক্ষার হার ৪১২,১%।

শিল্প কল কারখানা নাই বললেই চলে,এখানকার মানুষ ৭৮,৯৩% কৃষিজীবি।

তাত লোক শিল্পে গড়ে তোলে বিকাশ করা যেত।

এখানে সঠিক নেতৃত্বের অভাব এবং অর্থ পেশীশক্তির কাছে বিকিয়ে না দিয়ে রানীশংকৈল পৌরসভাকে মডেল হিসেবে গড়ে তোলা।

ইসতেহার সমুহ নিম্নরূপ;
১,পঞ্চবার্ষিকপরিকল্পনায় আমাদের শহর আমাদের শ্বপ্ন গড়ে তোলার অঙ্গীকার করতে হবে।
২,কুলিক নদীর সৌন্দর্য‍্যবর্ধনের জন‍্য বিভিন্ন প্রকল্পের প্রয়োজন।

৩,পৌর সভার ০৯টি ওয়ার্ডে অভিযোগ বক্স থাকবে।

৪,পৌরসভার একটি ফেইসবুক পেইজ থাকবে এবং একটি হট লাইন চালু থাকবে।

৫,পৌরসভার প্রাইমারী স্কুলগুলোর পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের রাত্রীকালিন কোচিং থাকবে।
৬,ব‍্যবসা বাদ্ধব শহর প্রতিষ্ঠান কাজ করা হবে।৭,উপজেলা হাসপাতাল,ক্লিনিককে স্বাস্হ‍্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে।

৮,পৌরসভার পোরোনো সিটিজেনদের নিয়ে প্রবিন হৈতৌষির সংগঠন করা হবে।

৯,সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরের নেতৃত্বে নারী ফোরাম গড়ে তোলা হবে।

১০,পৌরসভায় একটি শিশুও যুব ফোরাম থাকবে।

১১,বিভিন্ন পেশাজীবি সংগঠনের সাথে 06মাস পর পর মতবিনিময় করা হবে।

১২,প্রতিটি উৎসব ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান হবে শান্তিপুর্ন।

১৩,যে কোন স্হাপনা নির্মানে ব্লিডিং কোড অনুসরন করা হবে।

১৪,শহরের একটি পয়েন্টে আর্বজনা ফেলার স্হান থাকবে।

১৫, পশু জবাইয়ের নিদিষ্ট স্হান থাকবে।

১৬,পৌরসভার প্রতিটি কবরস্হানে লাইটিং এর ব‍্যবস্হা থাকবে।

১৭, শহরের যানজট নিরসনে পরিকল্পনা অনুযায়ী সব ব‍্যবস্হা নেওয়া হবে।এবং দুর পাল্লার ষ্টান্ডগুলো দুরে রাখা হবে।

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button