অর্থনীতি

ভারত থেকে আমদানির খবরে দাম কমেছে পেঁয়াজের

০১ জানুয়ারী ২০২১, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণে টানা সাড়ে তিন মাস ধরে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ ছিল। গত ২৮ ডিসেম্বর ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয়। এরপর থেকেই দিনাজপুরের হিলির বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতির দিকে। আমদানির খবরে বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা। পেঁয়াজের দাম কমার কারণে ক্রেতাদের চাহিদাও বেড়েছে।

১ জানুয়ারি সাপ্তাহিক ছুটির কারণে বন্দরের কার্যক্রম বন্ধ। তাই ২ জানুয়ারি থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হতে পারে বলে জানা গেছে।

হিলি বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা সাহাবুল ইসলাম বলেন, দুদিন আগে পেঁয়াজ বিক্রি করেছি প্রতিকেজি ৪০ টাকা। বৃহস্পতিবার বিক্রি করেছি সেই পিঁয়াজ ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা কেজি। শুক্রবার সেই পেঁয়াজ বিক্রি করছি প্রতিকেজি ৩০ থেকে ৩২ টাকা। ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ায়, কাল-পরশুর মধ্যে ভারতীয় পেঁয়াজ দেশে আসবে। এ জন্য বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে। আগে মোকামে যে পেঁয়াজ ১ হাজার ২শ-৩শ টাকা মণ ছিল ভারতীয় পেঁয়াজ আসার খবরে সেই পেঁয়াজের দাম কমে ১ হাজার টাকায় এসেছে।

বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা তাজ হোসেন বলেন, ভারতীয় পেঁয়াজ আসছে খবরেই বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা। বাজারে দেশীয় জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩২ টাকা কেজি দরে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন বলেন, ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করায় হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারকরা ইতোমধ্যেই কার্যক্রম শুরু করেছেন। তবে দেশের বাজারে দাম ও ভারতীয় পেঁয়াজের চাহিদার ওপর নির্ভর করবে এলসির সংখ্যা ও পেঁয়াজ আমদানির পরিমাণ। নতুন বছরের ২ জানুয়ারি থেকে পেঁয়াজ আসা শুরু করবে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হলে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম আরও কমে আসবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির কারণে গত ১৪ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে ভারত।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button