আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রেও অনুমোদন পেলো ফাইজারের ভ্যাকসিন

১২ ডিসেম্বর ২০২০, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

করোনা মোকাবিলায় একের পর এক বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অনুমোদন দেয়া হচ্ছে ভ্যাকসিনের। সর্বশেষ শুক্রবার করোনা ভ্যাকসিন জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চলতি বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত এক কোটি ৫৮ লাখ ৩৪ হাজার ৯৬৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মোট ২ লাখ ৯৪ হাজার ৮৭৪ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

ভ্যাকসিন অনুমোদনের বিষয়টি এমন ব্যক্তি নিশ্চিত করেছেন যিনি এই অনুমোদন কাজের সাথে জড়িত। তবে নিজের নামটি গোপন রাখতে চেয়েছেন তিনি।

খাদ্য ও ওষুধ কর্তৃপক্ষের (এফডিএ) অনুমোদন পাওয়া ফাইজার ও বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন খুব শিগগিরই স্বাস্থ্যকর্মী ও নার্সিং হোমে থাকা রোগীদের শরীরে প্রয়োগ করা হবে।

ভ্যাকসিন অনুমোদনে এফডিএ-র সিদ্ধান্ত ব্যাপকভাবে পর্যালোচনা চালানোর পরই এসেসে। এছাড়া এর পেছনে ট্রাম্প প্রশাসনের রাজনৈকি চাপও ছিল। ট্রাম্প প্রশাসন এই সংস্থাকে খুবই ধীর বলে অভিযোগ করেন এবং শুক্রবারের মধ্যে টিকার অনুমোদন না দেয়া হলে এফডিএ প্রধান স্টিফেন হানকে সরিয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়।

এই পদক্ষেপটি মার্কিন ইতিহাসে সবচেয়ে বড় টিকাদান কর্মসূচি, তবে এটির বৈশ্বিক প্রভাবও রয়েছে কারণ যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্ত অনেক দেশের কাছে রোল মডেল মনে হতে পারে এবং তারাও ভ্যাকসিন নেয়ার কার্যক্রম শুরু করতে পারে।

ফাইজার ও বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন ছাড়াও মর্ডানার ভ্যাকসিন অনুমোদনের বিষয়টিও ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী সপ্তাহেই এই ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেয়া হতে পারে। এছাড়া জানুয়ারির শুরুর দিকে জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিনও বাজারে আসতে পারে। এটা বর্তমানে চূড়ান্ত ট্রায়ালে আছে।

ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করা ট্রাম্প প্রশাসনের এক কর্মকর্তার দেয়া তথ্যমতে, ফাইজার-বায়োএনটেকের ৩ মিলিয়ন টিকা প্রথম ধাপে দেশব্যাপী দেয়া হবে। একই পরিমান টিকা দ্বিতীয় ধাপে প্রয়োগের জন্য রিজার্ভ করে রাখা হবে।

এর আগে যুক্তরাজ্য, বাহরাইন ও কানাডা ফাইজারের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমোদন দেয়।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১৬ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী করোনা আক্রান্ত রোগী ৭ কোটি ছাড়িয়েছে।

জেএইচইউ এর তথ্য অনুযায়ী, করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৯২ হাজার ৪৮৬ জনে। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ১ লাখ ৩১ হাজার ৯১১ জনে। করোনা থেকে বিশ্বব্যাপী সুস্থ হয়েছেন ৪ কোটি ৫২ লাখ ৯২ হাজার ১৪৬ জন।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button