সারাদেশ

হোমনায় শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে নিত্যপণ্য বিক্রয়ের জন্য খোলা জায়গা নির্ধারণ করলেন প্রশাসন

৮ এপ্রিল ২০২০, বিন্দুবাংলা টিভি. কম,
সৈয়দ আনোয়ার,হোমনা :
মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনগণের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে।
দিনরাত এলাকায় এলাকায় ঘুরে ঘুরে কাজ করে যাচ্ছেন হোমনা উপজেলা প্রশাসন। প্রতিদিন ১৪ থেকে ১৬ ঘন্টা টানা কাজ করছেন উপজেলার সর্বত্র ঘুরে। মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে এমন দায়িত্ব পালন করো যাচ্ছেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাপ্তি চাকমা সহ উপজেলা প্রশাসন ও হোমনা মেঘনা সার্কেল এএসপি মো.ফজলুল করিম ও হোমনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কায়েস আকন্দ এর নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী।

সামাজিক দূরত্ব( শারীরিক দূরত্ব) বজায় রাখা, হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করা, ঢাকা নারায়ণগঞ্জ থেকে চলে আসা ব্যক্তিদের ঘরে রাখার ব্যবস্থা করা। বাজার ব্যবস্থা স্থিতিশীল রাখা, বাহিরে ঘুরাঘুরি করা জনসাধারনকে ঘরে ফেরানো,জনগণের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করা, জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিতরণকৃত ত্রাণের তদারকি করা। হাট-বাজার,পাড়া মহল্লা,ও সড়ক গুলোতে রাতের নিরাপত্তা নিশ্চিত সহ সার্বক্ষণিক কর্মতৎপরতায় ১৪ থেকে ১৬ ঘন্টার ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রশাসন।

শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হোমনা উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারের মাছ,তরকারি, দুধ ও নিত্যপণ্যের দোকান গুলো বাজার থেকে সরিয়ে খোলা মাঠে দূরত্ব ভেদে বসিয়ে দেয়ার লক্ষ্যে। বিভিন্ন হাট-বাজার সংশ্লিষ্ট খোলা মাঠ, কলেজ কিংবা স্কুল মাঠ খুঁজে খুঁজে জায়গা নির্ধারণ করে। ব্যবসায়ীদের সেখানে দূরত্ব বজায় রেখে সরকার ঘোষিত নির্ধারিত সময় পর্যন্ত ব্যবসা কাজ পরিচালনার জন্য ব্যবস্থা করছেন। গত কয়েক দিনের এমন কর্ম পরিকল্পনার বাস্তবায়ন শেষ করলেন সর্বশেষ রামকৃষ্ণপুর বাজার দিয়ে।
এই অস্থায়ী বাজারগুলোতে যেন শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্রেতা সাধারণ তাদের কেনাকাটা করেন। এবং দ্রুত সময়ে বাড়ি ফিরে যান। কেউ যেন অকারনে বাইরে না আসেন এই বিষয়টি তদারকির জন্য থাকবে পুলিশের কড়া নজরদারি।

ইতিমধ্যে উপজেলা সদর, দুলালপুর, গাড়মোরা, কাশিপুর,রামকৃষ্ণপুর সহ সবকটি হাট-বাজারের জন্য এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ব্যবস্থা করা হয়েছে খোলা ও আয়তনে বড় জায়গার।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button